বর্তমানে কোভিড-১৯ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখায় ই-লার্নিং এর ভূমিকা বিষয়ক 250 শব্দের একটি প্রতিবেদন তৈরি করো

বর্তমানে covid-19 উদ্ভূত পরিস্থিতিতে শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখায় ই লার্নিং এর ভূমিকা বিষয়ক প্রতিবেদনটি বাংলাদেশ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, নবম শ্রেণীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ষষ্ঠ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট এর কাজ হিসেবে প্রকাশ করেছে। আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে উক্ত প্রতিবেদনটি নির্ভুলভাবে তুলে ধরলাম। আপনারা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে প্রতিবেদনটির পিডিএফ সহ উক্ত প্রতিবেদনটি ডাউনলোড করতে পারবেন। প্রতিবেদনটি ডাউনলোড করতে পোস্টটি পড়তে থাকুন।

প্রতিবেদন

বিষয়ঃ কোভিড-১৯ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখায় ই-লার্নিং।

প্রাপকের নামঃ……………….

ঠিকানাঃ…………………

কোভিড-১৯  উদ্ভূত পরিস্থিতিতে শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখায় ই-লার্নিং

কোভিড-১৯ মহামারী সারা বিশ্বের জন্য একটি আতংকের নাম। সারাবিশ্বের লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবন নাশের কারণ এই ক্ষুদ্র ভাইরাস। যেহেতু কোভিড-১৯মানুষের স্পর্শ শ্বাস-প্রশ্বাস হাঁচি-কাশির মাধ্যমে ছড়ায় তাই। মানুষের সাথে মানুষের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য সারা বিশ্বের সব কিছু বন্ধ হয়ে যায়। আমাদের দেশের সকল অর্থনৈতিক কার্যক্রম থেকে শুরু করে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। অর্থাৎ সারাদেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এই কোভিদ 19 এর কারণে দীর্ঘ দেড় বছর যাবৎ বন্ধ রয়েছে। যার জন্য এদেশের প্রাথমিক মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক সহ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হয়েছে।

Covid-19 এর কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত ই-লার্নিং শিক্ষাব্যবস্থায় একটি সময়োপযোগী পদক্ষেপ পদক্ষেপ। এই ই-লার্নিং শিক্ষাব্যবস্থার মাধ্যমে বাংলাদেশ মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক গৃহীত অ্যাসাইনমেন্ট ভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রম একটি অন্যতম নিদর্শন। যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা ঘরে থেকে তাদের শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও বাংলাদেশের কলেজে ইউনিভার্সিটি গুলো ভিডিও কলিং এর মাধ্যমে তাদের শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা ঘরে বসে তাদের শিক্ষাব্যবস্থা চালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যেই ই-লার্নিং এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করতে বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নিয়ে আসছে । যেমন অনলাইন এ্যাপয়েন্টমেন্ট ভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া অনলাইনে পরীক্ষা অনলাইন ভিত্তিক ক্লাস ইত্যাদি একটি সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত।

অনলাইন ভিত্তিক e-learning শিক্ষা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক প্রদত্ত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমাদের মাধ্যমিক স্কুল গুলো যথার্থ ভূমিকা পালন করছে। যেমন তারা অনলাইনের মাধ্যমে ভিডিও কলিং এর মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রকাশিত প্রশ্নের এবং অ্যাসাইনমেন্ট এর কাজ গুলো শ্রেণী শিক্ষক গুলো মূল্যায়ন করছে। এছাড়াও অনলাইন পরীক্ষার মাধ্যমে তারা ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়ার মূল্যায়ন করছে। সর্বোপরি এই মাধ্যমিক পর্যায়ের ছাত্র-ছাত্রীদেরকে শিক্ষার মধ্যে রাখার জন্য মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুলগুলো যেমন আমাদের নিজ বিদ্যালয়গুলো অনলাইনের মাধ্যমে সকল শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

কোভিড-১৯ উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণে দেশের সকল অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান বন্ধের সাথে সাথে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এর ফলে শিক্ষার্থীদের ঝরে যাওয়ার একটি বড় ধরনের আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছিল। যা অনলাইনের মাধ্যমে ই-লার্নিং শিক্ষার মাধ্যমে কিছুটা হলেও লাঘব করা সম্ভব হয়েছে। ই-লার্নিং এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা ঘরে বসে নিরাপদে তাদের শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারতেছে। অর্থাৎ বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক গৃহীত হয় লার্নিং শিক্ষা ব্যবস্থার জন্য ছাত্র-ছাত্রীদেরকে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি তাদেরকে স্কুল পর্যায়ে ঝরে যাওয়া থেকে রোধ করছে। যার ফল ফলস্রুতিতে দেশের সকল পর্যায়ের ছাত্র-ছাত্রীদেরকে শিক্ষার মধ্যে রেখে তাদের শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে।

সকল পোস্টের আপডেট পেতে ‍নিচের ফেসবুক আইকনে ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেইজে জয়েন করুন।

Check Also

প্রাণীর পরিচিতি ও শ্রেণিবিন্যাস উপস্থাপন। ৮ম শ্রেণি [৩য় সপ্তাহ] বিজ্ঞান

প্রিয় অষ্টম শ্রেণীর 2022 শিক্ষা বর্ষের শিক্ষার্থীরা। তোমাদের তৃতীয় সপ্তাহের জন্য নির্ধারিত বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্টের নির্ভুল …