কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে মাস্কের বিভিন্ন দামে চাহিদা ও যোগানের পরিমাণ – এসএসসি 2021 অর্থনীতি [৬ষ্ঠ সপ্তাহ] অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর।

এসএসসি 2021 সালের ষষ্ঠ সপ্তাহের নির্ধারিত অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট এর উত্তর প্রকাশ করা হলো। আমরা বাংলাদেশ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে এসএসসি 2021 সালের ষষ্ঠ সপ্তাহের জন্য নির্ধারিত অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্টের প্রশ্ন সংগ্রহ করে এর সঠিক এবং পূর্ণাঙ্গ উত্তর তৈরি করেছে। ফলে এখন থেকে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে 2021 সালের মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীরা তাদের ষষ্ঠ সপ্তাহের অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট এর প্রশ্ন এবং উত্তর প্রশ্নের নির্ভুল উত্তর ডাউনলোড করে নিতে পারেন। এসএসসি 2021 সালের ষষ্ঠ সপ্তাহের অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট এর পূর্ণাঙ্গ উত্তর পেতে নিচের অংশ ভালভাবে পড়ুন।

এসএসসি অর্থনীতি ষষ্ঠ সপ্তাহ অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্ন 2021

আমরা এসএসসি অর্থনীতির ষষ্ঠ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্টের উত্তর এর পাশাপাশি এর প্রশ্ন প্রকাশ করেছি। ফলে এসএসসি 2021 সালের মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীরা তাদের কাঙ্ক্ষিত অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্টের উত্তর ডাউনলোড এর পূর্বে এর প্রশ্ন দেখে প্রশ্নের নং অনুযায়ী আমাদের ওয়েবসাইট থেকে নির্ভুলভাবে অ্যাসাইনমেন্টের উত্তর সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। নিচে অর্থনীতি ষষ্ঠ সপ্তাহ অ্যাসাইনমেন্ট এর প্রশ্ন দেওয়া হল।

অ্যাসাইনমেন্টঃ ০৪

তৃতীয় অধ্যায়ঃ উপযােগ, যোগান ও ভারসাম্য চাহিদা ,

অ্যাসাইনমেন্টঃ

কোভিট-১৯ পরিস্থিতিতে মাস্কের বিভিন্ন দামে চাহিদা ও যােগানের পরিমাণ –

উক্ত সূচি অনুযায়ী চাহিদা রেখা, যােগান রেখা , ভারসাম্য দাম ও পরিমাণ নির্ণয়সহ পছন্দমতাে দ্রব্যের একটি চাহিদা সূচি নিয়ে চাহিদা রেখা অংকন

নির্দেশনাঃ

  1. চাহিদা
  2. চাহিদা সূচি
  3. *চাহিদা রেখা
  4. যােগান
  5. *যােগান সূচি
  6. যােগান রেখা
  7. ভারসাম্য দাম ও পরিমাণ

এসএসসি 2021 অর্থনীতি ষষ্ঠ সপ্তাহ এসাইনমেন্ট উত্তর

প্রিয় এসএসসি 2021 সালের পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীরা। আমরা আপনাদের অর্থনীতি ষষ্ঠ সপ্তাহ এসাইনমেন্ট এর প্রশ্নের উপর ভিত্তি করে আমাদের অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলীর মাধ্যমে এর নির্ভুল উত্তর প্রকাশ করেছি। চলন এসএসসি 2021 সালের ষষ্ঠ সপ্তাহের অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্টের নির্ভুল এবং পূর্ণাঙ্গ উত্তর দেখে নেয়া যাক।

উত্তরঃ

চাহিদাঃ

সাধারণ অর্থে কোনাে দ্রব্য পাওয়ার আকাঙ্ক্ষাকে চাহিদা বলে। অর্থনীতিতে চাহিদা বলতে কার্যকরী চাহিদাকে বােঝায়। অর্থাত্ আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে থাকতে হবে ক্রয়ক্ষমতা বা অর্থ। যেমন কোনাে দরিদ্র দিনমজুরের একটি ফ্রিজ কেনার আকাঙ্ক্ষা থাকতে পারে। কিন্তু ভার ক্রয়ক্ষমতা নেই বলে এটি চাহিদা হবে না। অর্থনীতিতে চাহিদা বলতে বােঝায় কোনাে দ্রব্যের আকাঙ্ক্ষা পূরণের জন্য সামর্থ্য বা অর্থ এবং অর্থব্যয় করার ইচ্ছা। অধ্যাপক পেনশনের ভাষায়, কোনাে দ্রব্য পাওয়ার আকাঙ্ক্ষার পশ্চাতে প্রযােজনীয় অর্থ এবং ওই অর্থ ব্যয় করার প্রবল ইচ্ছা থাকলেই তাঅর্থনীতিতে চাহিদা বলে গণ্য হয়। সুতরাং চাহিদার তিনটি উপাদান রয়েছে।

যেমন— ১. কোনাে দ্রব্য পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা ২. সেই দ্রব্য ক্রয়ে প্রয়ােজনীয় অর্থ বা ক্রয়ক্ষমতা ৩. দ্রব্য ক্রয়ে সেই অর্থ ব্যয় করার ইচ্ছা। চাহিদা বিধিঃ চাহিদার অ্যান্য নির্ধারকসমূহ অপরিবর্তিত থেকে স্বাভাবিক সময়ে কোনাে দ্রব্যের দাম হ্রাস পেলে চাহিদা বৃদ্ধি পায়, দাম বৃদ্ধি পেলে চাহিদা হ্রাস পায়। দাম ও চাহিদার পরিমানের মধ্যে এরুপ বিপরীত সম্পর্ককে চাহিদা বিধি বলা হয়। চাহিদা বিধির ক্ষেত্রে অন্যান্য নির্ধারক হল : বিকল্প দ্রব্যের দাম, পরিপূরক দ্রব্যের দাম, ক্রেতার আয, রুচি, অভ্যাস ও সংখ্যা ইত্যাদি।

চাহিদা সূচি থেকে চাহিদা রেখা অঙ্কনঃ

চাহিদা বিধিতে আমরা দেখেছি দামের সাথে চাহিদার বিপরীত সম্পর্ক বিদ্যমান। অর্থাৎ দ্রব্যের দাম বাড়লে চাহিদার পরিমাণ কমে, আবার দ্রব্যের দাম কমলে চাহিদার পরিমাণ বাড়ে। এ ধারণাটি যখন সূচির মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়, তখন তাকে চাহিদা সূচি বলে। অতএব, বলা যায় একটি নির্দিষ্ট সময়ে বিভিন্ন দামে কোনাে দ্রব্যের যে বিভিন্ন পরিমাণ চাহিদা হয়,তা যে তালিকার মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়,তাকে চাহিদা সূচি বা চাহিদা তালিকা বলে।

সূচিতে দেখা যায়, কোনাে দ্রব্যের প্রতি এককের দাম ৮ টাকা হলে একজন ভােক্তা ৪ একক দ্রব্য ক্রয় করে। দাম কমে ৬ টাকা, ৪ টাকা ও ২ টাকা হলে চাহিদা বেড়ে যথাক্রমে ৮ একক, ১২ একক ও ১৬ একক হয়। এভাবে চাহিদা সূচির মাধ্যমে দাম ও চাহিদার মধ্যে বিপরীত সম্পর্ক দেখানাে হয়েছে।

যােগানঃ

সাধারণ অর্থে যােগান বা সরবরাহ বলতে বাজারে প্রচলিত দামে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে যে পরিমাণ দ্রব্যসামগ্রী বর্তমান থাকে তাকে বুঝানাে হ্য। কিন্তু অর্থনীতিতে যােগান বলতে একটি নির্দিষ্ট সময় নির্দিষ্ট দামে বিক্রেতা/সরবরাহকারীরা কোনাে দ্রব্যের যে পরিমাণ দ্রব্য বিক্রয় করতে রাজি থাকে তাকেই যােগান বলে।

যােগান বিধিঃ

আমরা প্রতিনিয়ত বাজারে জিনিসপত্র ক্রয়-বিক্রয় করে থাকি। একজন বিক্রেতা কখন তার দ্রব্যটি বিক্রয় করতে আগ্রহী হবেন? অবশ্যই ঐ দ্রব্যের দাম যখন বাজারে সবচেয়ে বেশি,তখনই একজন বিক্রেতা তার পণ্য বিক্রয় করতে চাইবেন। ধরি, আলুর কেজি যখন ১৫ টাকা, তখন বিক্রেতা ২ কুইন্টাল আলু বিক্রয় করে। দাম বেড়ে ২০ টাকা কেজি হলে বিক্রেতা বেশি পরিমাণে আলু সরবরাহ করতে চায়। মনে করি, তখন সরবরাহ হবে ৩০ কুইন্টাল। অর্থাৎ দ্রব্যের দাম বৃদ্ধির সাথে সাথে দ্রব্যের যােগানের পরিমাণ বাড়ে এবং দাম কমার সাথে সাথে দ্রব্যের যােগানের পরিমাণ কমে যায়। অতএব দাম ও যােগানের সম্পর্ক সমমুখী। দাম যেদিকে পরিবর্তিত হয়, যােগানও সেদিকে পরিবর্তিত হয়। অর্থাৎ অন্যান্য অবস্থা অপরিবর্তিত থাকলে (যেমন, উপকরণ দাম ও প্রযুক্তি স্থির, স্বাভাবিক সময় বিবেচিত), দাম বৃদ্ধি পেলে যােগানের পরিমাণ বৃদ্ধি পায় এবং দাম হ্রাস পেলে যােগানের পরিমাণ হ্রাস পায়। অর্থাৎ দামের সঙ্গে যােগানের এরূপ প্রত্যক্ষ সম্পর্ককে যােগান বিধি বলে।

যােগান সূচি থেকে যােগান রেখা অঙ্কনঃ

দ্রব্যের দাম বাড়লে যােগানের পরিমাণ বাড়ে, দাম কমলে যােগানের পরিমাণ কমে। দাম পরিবর্তনের ফলে যােগানের এ সমমুখী পরিবর্তনকে যােগান সূচিতে দেখানাে যায় । যােগান সূচির একদিকে দ্রব্যের দাম এবং অন্যদিকে দ্রব্যের যােগানের পরিমাণ দেখানাে হলাে।

সূচিতে দেখা যায়, কোনাে দ্রব্যের প্রতি কুইন্টালের দাম ১০ টাকা হলে তার যােগান হয় ১০ কুইন্টাল। দাম বেড়ে ২০ টাকা, ৩০ টাকা ও ৪০ টাকা হলে যােগানের পরিমাণ বেড়ে দাঁড়ায় যথাক্রমে ২০ কুইন্টাল, ৩০ কুইন্টাল ও ৪০ কুইন্টাল। এভাবে যােগান সূচিতে যােগান বিধি প্রতিফলিত হয় ।

যােগান রেখাঃ

কোনাে দ্রব্যের দাম বাড়লে যােগানের পরিমাণ বাড়ে, দাম কমলে যােগানের পরিমাণ কমে। দাম পরিবর্তনের ফলে যগানের পরিমাণের এ সমমুখী পরিবর্তনকে যখন রেখাচিত্রের মাধ্যমে দেখানাে হয়, তখন তাকে যােগান রেখা বলে। যােগান সূচি থেকে কীভাবে যােগান রেখা অঙ্কন করা যায় তা নিচে দেখানাে হলােঃ

ভারসাম্য দাম নির্ধারণঃ

বাজারের একটি সাধারণ দৃশ্য হলাে ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে দ্রব্যের দাম নিয়ে দর-কষাকষি করা। ক্রেতা চেষ্টা করে সর্বনিম্ন দামে দ্রব্যটি ক্রয় করতে । আবার, বিক্রেতা চেষ্টা করে সর্বোচ্চ দামে দ্রব্যটি বি করতে। ক্রেতা-বিক্রেতার দর-কষাকষির ফলে এমন একটি দামে দ্রব্যটি ক্রয়-বিক্রয় হয়, যেখানে চাহিদা ও যােগান পরস্পর সমান। যে দামে দ্রব্যটির চাহিদা ও যােগান সমান হয়, তাকে ভারসাম্য দাম বলে। ভারসাম্য দামে যে পরিমাণ দ্রব্য কেনা-বেচা হয়, তাকে ভারসাম্য পরিমাণ বলে।

উপরের রেখাচিত্রে ভূমি অক্ষে বা ox অক্ষে চাহিদা ও যােগানের পরিমাণ এবং লম্ব অক্ষে বা OY অক্ষে দ্রব্যের দাম নির্দেশ করা হয়েছে। রেখাচিত্রে বাজার চাহিদা রেখা DD এবং বাজার যােগান রেখা ss অঙ্কন করা হয়েছে। ধরাে, OA দামে চাহিদা ও যােগানের পরিমাণ যথাক্রমে OE ও OH । এ দামে চাহিদা অপেক্ষা যােগানের পরিমাণ বেশি। চাহিদা অপেক্ষা যােগান বেশি হলে দাম কমবে। ফলে এক সময় দাম কমে OA থেকে OP-তে আসবে। যেখানে চাহিদা ও যােগান সমান হবে। আবার দাম যদি OC হয় তাহলে যােগানের পরিমাণ OE©বং চাহিদার পরিমাণ OH ।

অর্থাৎ এখানে যােগানের তুলনায় চাহিদার পরিমাণ বেশি ফলে এক সময় দ্রব্যের দাম অবশ্যই বাড়বে এবং দাম OP-তে গিয়ে স্থির হবে। যেখানে চাহিদা ও যােগানের পরিমাণ পরস্পর সমান। এভাবে দেখা যায়, দাম যখন OP হয়, কেবল তখনই চাহিদা ও যােগানের মােট পরিমাণ সমান অর্থাৎ OM । অতএব OP দামে চাহিদা ও যােগান সমান থাকে এবং দাম বাড়া কিংবা কমার কোনাে প্রবণতা থাকে না। কাজেই OP হলাে ভারসাম্য দাম এবং OM হলাে ভারসাম্য দ্রব্যের পরিমাণ । R বিন্দুতে Dচ্চাহিদা রেখা এবং ss যােগান রেখাদ্বয় পরস্পরকে ছেদ করে। অতএব এই R ছেদ বিন্দুতে নির্দেশিত হলাে ভারসাম্য দ্রব্যের দাম ও ভারসাম্য পরিমাণ ।

সারণিতে, প্রতি কেজি ২৫ টাকা দামে ভােক্তা প্রতি মাসে ২৫ কেজি চিনি ক্রয় করে, ২০ টাকা দামে ৩০ কেজি।

 

চিনি ক্রয় করে। এভাবে সারণি থেকে দেখা যায়, প্রতি কেজি চিনির দাম যত কমছে চিনির চাহিদার পরিমাণ তত বাড়ছে। চাহিদা সূচি অনুযায়ী আমরা দেখতে পাচ্ছি যে, একটি নির্দিষ্ট সময়ে চাহিদার অন্যান্য নির্ধারণসমূহ স্থির থাকা অবস্থায় দ্রব্যের দামের উপর দ্রব্যটির প্রকৃত ক্রয়ের পরিমাণ নির্ভর করে। রেখাচিত্রের মাধ্যমে চাহিদা সূচির প্রকাশই হচ্ছে চাহিদা রেখা। চিত্র এ OY বা লম্ব অক্ষে চিনির দাম ও OX বা

ভূমি অক্ষে চিনির চাহিদার পরিমাণ দেখানাে হয়েছে। DD হচ্ছে ভােক্তার চিনির চাহিদা রেখা। এই রেখার a, b, c, d, e বিন্দুগুলােতে বিভিন্ন দামে চাহিদার বিভিন্ন পরিমাণ প্রকাশ পায়। যেমন, C বিন্দু দ্বারা বােঝা যায়, ১৫ টাকা দামে ভােক্তার মাসে চিনি চাহিদার পরিমাণ ৩৫ কেজি। আবার d বিন্দুতে ১০ টাকা দামে চিনির চাহিদা পরিমাণ ৪০ কেজি। অর্থাৎ দাম ও চাহিদার মধ্যে বিপরীত সম্পর্ক বিদ্যমান। দাম কমার সাথে সাথে চাহিদার পরিমাণ বাড়তে থাকে এবং চাহিদা রেখাটি বাম থেকে ডান দিকে নিম্নগামী হয়ে থাকে।

আরও দেখুনঃ

এসএসসি 2021 পৌরনীতি ও নাগরিকতা [৬ষ্ঠ সপ্তাহ] অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর। এসএসসি পরীক্ষার্থী 2021 অ্যাসাইনমেন্ট

Check Also

৮ম শ্রেণি [৩য় সপ্তাহ] বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর 2022। Class 8 {3rd-Week} Science

অষ্টম শ্রেণীর 2022 শিক্ষাবর্ষের তৃতীয় সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্টের বিষয়গুলো হল বাংলা এবং বিজ্ঞান। যার প্রশ্ন ইতোমধ্যে …